Type Here to Get Search Results !

রাজবংশী ভাষায় ভিডিও বানিয়ে সিলভার প্লে বাটন কোচবিহার এর ছেলে প্রীতমের

 

কোচবিহার: রাজবংশী ভাষায় ভিডিও বানিয়ে সিলভার প্লে বাটন প্রীতমের জাকির হোসেন ফেশ্যাবাড়ি , ২০ ডিসেম্বর : রাজবংশী ভাষায় একের পর এক ভাওয়াইয়া গান এবং মজার ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করে বাজিমাত করে চলেছেন কোচবিহারের প্রীতম রায় ও তার দল । সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে উপার্জনের নতুন রাস্তা খুঁজে পেয়েছেন তিনি । নতুন মজাদার শর্ট ভিডিও তৈরির পাশাপাশি ও রাজবংশী গানে অভিনয় করে রাজবংশী সমাজের ' জেন ওয়াই' এর কাছে রীতিমতো রোল মডেল হয়ে উঠেছেন । বর্তমানে উত্তরবঙ্গ সহ গোটা রাজ্যের পাশাপাশি অসম , প্রতিবেশী বাংলাদেশ ও নেপালে ছড়িয়ে রয়েছে তার গান । বর্তমানে ইউটিউবে কয়েক লক্ষ মানুষ তাঁর ভিডিও দেখে আনন্দ উপভোগ করেন । ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা > pas পেরোনোয় সম্প্রতি ' সিলভার প্লে বাটন'ও পেয়েছেন । রাজবংশী গানের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বাংলা গানেও অভিনয় করেন তিনি ।


 কোচবিহার কলেজ থেকে গণিতে । সদ্য স্নাতক হয়েছেন । কলেজের অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে নিছকই মজার ছলে ভিডিও বানানো শুরু ২০২০ সালের গোড়া থেকে । কিন্তু এত অল্প সময়ে কয়েক লক্ষাধিক মানুষ তার ভিডিও পছন্দ করবেন , প্রীতম ভাবেননি কখনও । করোনা অতিমারির অবসর সময়ে একের পর এক ভিডিও বানিয়ে ইউটিউব 3 ফেসবুকে আপলোডেই বাজিমাত । সিলভার প্লে বাটন হাতে প্রীতম জানালেন , তাঁর সহযোগী ইপ্সিতা বর্মন , শ্রেয়া অধিকারী , প্রেরণা দাস , শুভময় কার্জি , মৃগাঙ্কমৌলি বর্মন , শুভঙ্কর বর্মন , বিজন রায়দের নিয়ে একাধিক ভাওয়াইয়া গানে অভিনয় করেছেন । তাঁর কথায় , ' পড়ার ফাঁকে মজাদার ভিডিও বানিয়ে প্রীতম রায় ফেসবুক পেজ এবং প্রীতম রায় ক্রিয়েশন ’ ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করতাম । ' ইউটিউবে দেড় লক্ষাধিক মানুষের পাশাপাশি ফেসবুকে তিন লক্ষাধিক মানুষ তাদের ভিডিও দেখেন । অভিনয়ের পাশাপাশি গানও করেন । সম্প্রতি তাঁর কণ্ঠে গাওয়া ও অভিনীত ' জোছনা রাতি চান্দের আলো , দুজনে করিম দেখা ' ( জ্যোৎস্না রাতে চাঁদের আলোয় দুজনে করব দেখা ) , এলাকার চেংরি চালাক মুই তো জানো না ( এলাকার মেয়ে এত চালাক আমি জানতাম না ) রীতিমতো ' হিট ' উত্তরবঙ্গে । এছাড়া ‘ ও মাই সুন্দরী ' ( ও সুন্দরী মেয়ে ) , অসমের গোয়ালপাড়িয়া উত্তরবঙ্গের ভাওয়াইয়া , কথা মনত পড়ে ( তোমার কথা মনে পড়ে ) প্রভৃতি গানও দর্শকমহলে দারুণ সাড়া ফেলেছে । মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান প্রীতম রায় বরাবরই মেধাবী ছাত্র । বাবা প্রশাস্ত রায় পেশায় ল্যাব টেকনিসিয়ান ও মা পার্বতী বর্মনরায় অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী । আদি বাড়ি ফালাকাটা হলেও বাবা কর্মসূত্রে দীর্ঘদিন ধরে কোচবিহারে থাকেন । ছেলে প্রীতমের সাফল্যে খুশি গোটা রায় পরিবার । এ কাজে তাঁরা ছেলেকে সহযোগিতাও করেন । প্রীতম জানিয়েছেন , রাজবংশী ভাষা ও সংস্কৃতিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই তাঁর লক্ষ্য । ভাওয়াইয়া গানের গৌরবকে পুনরুদ্ধারের পাশাপাশি রাজবংশী ভাষায় নতুন গান রচনা ও অভিনয় করে দর্শকদের সামনে তুলে ধরতেই এই উদ্যোগ ।

Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.

Top Post Ad

Below Post Ad

Ads